আড়াইহাজারে ২লাশ উদ্ধার

রফিক রানাঃ  আড়াইহাজারে শুক্রবার সকালে পৃথক স্থান থেকে এক কিশোর ও এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এর একটি উপজেলার কালাপাহাড়িয়া ইউনিয়নের পূর্বকান্দি গাম থেকে, অপরটি বিশনন্দী ইউনিয়নের বিশনন্দী গ্রাম থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, পূর্বকান্দি গ্রামের শহিদুল্লাহ ও তার স্ত্রী ১৭ বছর বয়সি ছেলে মোফাসসেলকে সঙ্গে নিয়ে তার খালু মধ্যারচর গ্রামের বাতেনের বাড়ী বেড়াতে যাচ্ছিল। পথে মোফাসসেল দুষ্টুমী করায় পিতা শহিদুল্লাহ তাকে একটি থাপ্পর মারেন। ফলে অভিমানী ছেলে অভিমান করে রাস্তা থেকে বাড়ীতে ফিরে যায়। বেড়ানো শেষে শহিদুল্লাহ ও তার স্ত্রী মধ্য রাতে বাড়ীতে গিয়ে দেখেন ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। ছেলকে অনেক ডাকাডাকি করলেও দরজা না খোলায় দরজা ভেঙ্গে ভিতরে গিয়ে দেখেন ঘরের ধন্যার সাথে আর্জেন্টিনার পতাকা দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে মোফাসসের আত্মহত্যা করেছে। এ ব্যাপারে কালাপাহাড়িয়া পুলিশ ফাঁড়িতে সংবাদ দিলে পুলিশ শুক্রবার সকালে ঝুলন্ত অবস্থা থেকে লাশ উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ মর্গে পাঠায়।
অপর দিকে উপজেলার বিশনন্দী এলাকার মাদক ব্যবসায়ি রফিকুল ইসলাম ওরফে লাল ভাই নামে এক ব্যাক্তির স্ত্রীর লাশ শুক্রবার সকালে তার বসত ঘরের মেঝে থেকে উদ্ধার করেছে গোপালদী ফাঁড়ি পুলিশ। নিহতের নাম লিপি আক্তার (৩০)। ঘটনার পর থেকে তার দু শিশু সন্তানকে সঙ্গে নিয়ে স্বামী লাল ভাই পলাতক রয়েছে। তার পরিবারের অন্য সদস্যরাও পলাতক। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে প্রথমে আড়াইহাজার থানায় আনে এবং পরে নারায়ণগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করেছে। লাশের দেহের বিভিন্ন স্থানে নির্যাতনের চিহ্ন রয়েছে বলে এস আই ফরিদ জানান। এটি একটি পরিকল্পিত হত্যা কান্ড বলে পুলিশের প্রাথমিক ধারণা। নিহত লিপি নরসিংদীর শিমুলেরকান্দি গ্রামের আবুল হোসেনের মেয়ে। নিহতের পরিবারের দাবী, লাল ভাই প্রায় সময়ই লিপিকে নেশা গ্রস্থ অবস্থায় নির্যাতন করতো।
এ ব্যাপারে আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এম এ হক বলেন, আপাতত দুটি লাশ উদ্ধারের ব্যাপারেই ইউডি মামলা হচ্ছে। ময়না তদন্তে রিপোর্ট অনুযায়ী পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।