আড়াইহাজারে গুলিবিদ্ধ চার যুবকের পরিচয় সনাক্ত, দুটি মামলা

আড়াইহাজার নিউজ ডট কমঃ  আড়াইহাজার উপজেলায় চার যুবকের গুলি করে হত্যার ঘটনায় হত্যাসহ পুলিশ দুটি মামলা দায়ের করেছে। তবে উদ্ধার হওয়া চারজনের পরিচয় সনাক্ত হলেও পুলিশ মামলায় চার যুবকের অজ্ঞাত পরিচয় দেখানো হয়েছে। নিহতরা হলো , লুৎফর মোল্লা, সবুজ সরদার, ফারুক প্রমানিক ও জহিরুল হক।

সোমবার (২২ অক্টোবর) সকালে আড়াইহাজার থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) রফিউদ্দৌলা বাদী হয়ে মামলা দুটি দায়ের করেছে।

এদিকে গুলিবিদ্ধ চার যুবকের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে লাশের পোশাক দেখে চারজনের পরিচয় সনাক্ত করেছে নিহতের স্বজনরা। আর নিহত সবুজ সরদার, জহিরুল ও ফারুক প্রমানিক তিনজনই পাবনার আতাইকুলা থানাধীন ধর্মগ্রাম পুষ্পপাড়া এলাকার বাসিন্দা। আর লুৎফর মোল্লা ফরিদপুরের ভাঙ্গা থানার উত্তর আকনবাড়িয়ার কালিবাড়ীর মনসুর মেল্লার ছেলে। সে ঢাকার রামপুরার বাগিচারটেকের এলাকায় বসবাস করে গাড়ি চালাতো।

নিহত ফারুকের বাবা জামাল প্রমানিক বলেন, ১৫ বছর যাবত রূপগঞ্জের গাউছিয়ায় বাস চালাতো। গত সোমবার থেকে সে নিখোঁজ হন।

সবুজ সরদারের বাবা খাইরুল সর্দার জানান, তার ছেলে পেশায় একজন অটোরিকশা চালক। সবুজ ঢাকায় বেকারিতে চাকরি নেয়ার কথা বলে ২ সপ্তাহ আগে গ্রাম ছাড়ে। তার সাথে আরও দুইজন নিখোঁজ আছে কিন্তু মর্গে রাখা দুইজন তারা না বলে খাইরুল সর্দারের ভায়রা জানান।

জহিরুলের শ্বশুর নজরুল বলেন, জহিরুল বেকারীতে কাজ করতো। জহিরুলকে বেকারিতে কাজ করার জন্য গ্রাম থেকে নিয়ে এসেছিল ফারুক। ফারুক ছিনতাইতারী চক্রের সাথে জড়িত বলে শুনেছি। ফারুকই গ্রাম থেকে তিনজনকে শহরে নিয়ে এসেছে কাজ করানোর জন্য।

প্রসঙ্গত, পুলিশের প্রাথমিক ধারণা নিজেদের মধ্যে ছিনতাই বা ডাকাতির ভাগবাটোয়ারা নিয়ে এই খুনের ঘটনা ঘটতে পারে। তবে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে।